আজ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বিলুপ্তির পথে হাকালুকি হাওরের দেশীয় প্রজাতির রাণী মাছ

বিশেষ প্রতিনিধি —–
এশিয়ার বৃহত্তম হাকালুকি হাওর, নদ-নদী,খাল-বিলে বিভিন্ন জাতের মাছ ধরা পড়লেও দেশীয় প্রজাতির রাণী মাছের দেখা পাওয়া যাচ্ছে না।

দেশীয় প্রজাতির বিভিন্ন জাতের মাছের সঙ্গে রাণী মাছের বংশ অনেকটা বিলুপ্তি হতে চলেছে। বিশেষ করে আষাঢ় মাসের মাঝামাঝি সময় হতে কার্তিক মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত হাকালুকি হাওরও আশপাশের বিভিন্ন জলাশয়ে অন্যান্য দেশীয় মাছের সাথে রাণী মাছ ধরা পড়তো।

বিগত কয়েক বছর যাবত এ মাছের খুব একটা দেখা পাওয়া যাচ্ছেনা। এ বছর অন্যান্য বছরের চেয়ে রাণী মাছ একেবারেই কম পাওয়া যাচ্ছে। সরেজমিনে হাকালুকি হাওরে গিয়ে মৎস্যজীবিদের অনেকের সাথে কথা হলে তারা বলেন, আগামীতে এ প্রজাতির মাছ একেবারেই না পাওয়ারই সম্ভাবনা। এ জাতীয় মাছের বংশ বিস্তার বা রক্ষার লক্ষ্যে মৎস্য বিভাগের কোনো উদ্যোগ নেই। যার ফলে হাকালুকি হাওর, বিল, জলাশয়ের অতি পরিচিত প্রজাতির রাণী মাছ আজ বিলুপ্তি হওয়ার পথে।

ফলজ, বনজ ও জলজ সম্পদে পরিবেষ্টিত প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর, ভ্রমণ পিপাসু পর্যটকদের আকর্ষণীয় স্থান ওই হাকালুকি হাওর। এ হাওর ও জলাশয় থেকে সারা বছরই মাছ ধরা হয়। হাকালুকি হাওর, বিলসহ আশপাশের জলাশয় ও মৎস্য ভান্ডারগুলোতে নানা প্রজাতির মাছ জন্মে। তেলাপিয়া, কার্পো, রুই, কাতলাসহ ওই জাতীয় মাছের উৎপাদন ও বংশ বিস্তারে মৎস্য বিভাগ বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগ নিলেও দেশীয় স্থানীয় প্রজাতির মাছের বংশ রক্ষায় তেমন উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি।

মাত্র এক যুগ আগেও এ সময়ে বড়লেখার বিভিন্ন হাটবাজারে রাণী মাছের ব্যাপক বেচা-কেনা ছিলো।ধীরে ধীরে এ প্রজাতির মাছের সংখ্যা কমতে থাকায় অতি পরিচিত রাণী মাছ আজ অনেকটা হারিয়ে যাচ্ছে।

এ ব্যাপারে অত্র অঞ্চলের অনেকের অভিমত অন্যান্য মাছের মতো রাণী মাছ চাষে সরকারিভাবে উদ্যোগ নেয়া হলে হাকালুকি হাওরসহ আশপাশের জলাশয়গুলো আবারো অতীতের ন্যায় রাণী মাছ ভরে উঠবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ জাতীয় আরও খবর